কত পাখি গায়

আজি বসন্ত জাগ্রত দ্বারে। পঞ্জিকা বলছে আজ ফাল্গুন মাসের প্রথম দিন- বসন্ত এসে গেছে। ফাগুনের আমন্ত্রণে আগুন লেগেছে বনে বনে। যদি না লাগে তবুও ক্ষতি নেই। কারণ কবি ঘোষণা দিয়েছেন, “আজ বসন্ত”। শহুরে চোরাগোপ্তা ধুলোবালি কিংবা ট্রাফিক জ্যাম বাঁচিয়ে তাই নরনারী নিজেদের বাসন্তি রঙে সাজিয়েছে, গাইছে বসন্তের জয়গান। ইট কাঠের ফাঁকে এ শহরে আজও সদর্পে টিকে আছে নিসর্গ কিছু। সেখানে নীড় বেঁধেছে বিহঙ্গকুল। মানুষের মতো কৃত্রিম ব্যস্ততায় নিজেকে আবদ্ধ না রেখে আজও স্বাধীন চরে বেড়ায়। রাজধাণীর সিভিল এভিয়েশন এলাকার কিছু সংবিগ্ন পক্ষীকূল ধরা পড়লো আলোকচিত্রী আফজালুর রহমান ঝিলনের ক্যামেরায়।

লালপুচ্ছ বুলবুলি। লড়াকু পাখি হিসেবে দুনিয়াজোড়া দারুণ খ্যাতি এর।

 

সরু ঠোঁটের জন্য এদের নাম হয়েছে সুইচোরা। উড়ন্ত শিকার ধরতে এর জুড়ি নেই।

 

মেঘহও মাছরাঙা, মেললো পাখা।

 

বসন্তে বেশি দেখা যায় কালোমাথা বেনেবউ। লাজুক প্রকৃতির এই পাখিটি কুটুম পাখি নামেও পরিচিত।