চলছে জাতীয় চারুকলা প্রদর্শনী

বাংলাদেশে শিল্পচর্চার পীঠস্থান- বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। নিয়মিতভাবে দ্বিবার্ষিক এই প্রদর্শনীর আয়োজন করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। এই ধারাবাহিকতায় এবছর শুরু হয়েছে জাতীয় চারুকলা প্রদর্শনী। এবার অনুষ্ঠিত হচ্ছে ২২ তম আসর। গত জুলাই মাসের ২৬ তারিখ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালায় প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে একুশ দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন ও পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পীদের পুরস্কার প্রদান করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

একাডেমির চারুকলা বিভাগের ব্যবস্থাপনায় দ্বিবার্ষিক এ আয়োজন দেশের চারুশিল্পীদের জন্য বিশেষ তাৎপর্যময়। প্রতিযোগিতামূলক এ প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে ২৫ বছরের ঊর্ধ্বে চারুকলার সকল মাধ্যমে চর্চারত বাংলাদেশের চারুশিল্পীদের কাছ থেকে শিল্পকর্মের রঙিন আলোকচিত্র/সিডি জমা দেয়ার আহ্বান জানানো হয়। প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে ৬৩০ আবেদনকারী ১৮৯০ শিল্পকর্ম জমা দেন। এসব শিল্পকর্ম থেকে বিশিষ্ট শিল্পীদের সমন্বয়ে গঠিত নির্বাচন কমিটির সদস্যবৃন্দ ৩৩২ শিল্পীর ৩৮৪টি শিল্পকর্ম নির্বাচিত করেন। এর মধ্যে পেইন্টিং ২৬৫, ভাস্কর্য শিল্পকর্ম ৬৩, স্থাপনা শিল্পকর্ম-৪৭(ভিডিও-৯টি) ও নিউমিডিয়া-৯টি। এ নির্বাচন কমিটিতে ছিলেন শিল্পী তরুণ ঘোষ, শিল্পী রণজিৎ দাস, শিল্পী নাসরীন বেগম, শিল্পী মোস্তফা জামান মিঠু ও শিল্পী রফি হক। নির্বাচিত ৩৮৪ শিল্পকর্ম থেকে নির্বাচন করে ১০টি ক্যাটাগরিতে ১০ শিল্পীর ১০ শিল্পকর্মকে পুরস্কার দেয়া হয়।

সমুদ্রতীরে ছোট্ট শিশু আয়লান কুর্দির মরদেহ কাঁদিয়েছিল বিশ্ববিবেককে। সে শিশুকে উপজীব্য করে নিজের ভিডিও ইলাস্ট্রেশন সাজিয়ে এবারের আসরে সেরা পুরস্কার পেয়েছেন শিল্পী হারুন অর রশীদ। চিত্রকলা বিভাগে ‘নৃশংসতার সুর’ ছবির জন্য আনিসুজ্জামান সোহেল পান সম্মানসূচক পুরস্কার। ভাস্কর্য বিভাগে সম্মানসূচক পুরস্কার পান শ্যামল চন্দ্র সরকার। তাঁর শিল্পকর্মের নাম ‘অদম্য’। ছাপচিত্র বিভাগে ‘রিডিমিং স্পেস-১’ ছবির জন্য শিল্পী আনিসুজ্জামান, ‘ক্ষুধা ও পূর্ণিমার চাঁদ’ শিল্পকর্মের জন্য নিউ মিডিয়া বিভাগে উত্তম কুমার রায় শিল্পকলার সম্মান পুরস্কার পান। ‘শাশ্বত অস্তিত্ব-৩০’ শিল্পকর্মের জন্য বেঙ্গল ফাউন্ডেশন পুরস্কার পান সৌরভ চৌধুরী, ‘সময় ও বাস্তবতার জটিলতা’র জন্য ছাপচিত্র বিভাগে রুহুল আমিন তারেক পান এবি ব্যাংক পুরস্কার, ‘রেস্টোরেশন-২’ শিল্পকর্মের জন্য ভাষাসৈনিক গাজীউল হক পুরস্কার (ছাপচিত্র) পান কামরুজ্জামান। ‘ঐতিহ্য-২’ ছবির জন্য বেগম আজিজুন্নেছা পুরস্কার (চিত্রকলা) পান মো. কামালুদ্দিন, নিউ মিডিয়া বিভাগে শুভ ঘোষ পান দীপা হক পুরস্কার, তাঁর শিল্পকর্ম ‘মাতৃগর্ভ-২’।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, সংস্কৃতি সচিব মোঃ ইব্রাহিম হোসেন খান ও শিল্পী সৈয়দ জাহাঙ্গীর। সভাপতিত্ব করেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

প্রদর্শনীটি চলবে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত। সবার জন্য উন্মুক্ত প্রদর্শনীটি প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত এবং শুক্রবার বিকেলে ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।