মেধা ও মননের বিকাশে ‘শিশু একাডেমীর বইমেলা’

শিশুদের মেধা ও মনন বিকাশে প্রয়োজন নিয়মিত বই পড়ার চর্চা। একটি জাতির ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি জানার জন্যও বইয়ের কোনো বিকল্প নেই। তাই অভিভাবকসহ  বিভিন্ন বয়সী শিশু-কিশোরদের সমাগম হচ্ছে রাজধানীর শিশু একাডেমী প্রাঙ্গনে।

‘রঙ ছড়ানো আলো, লাল-সবুজের বাংলাদেশে থাকবে শিশু ভালো’- এই প্রতিপাদ্য সামনে রেখে শিশু একাডেমী উদযাপন করছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী ও শিশু দিবস। ১৯৯৬ সাল থেকে বঙ্গবন্ধুর জন্মতারিখে পালিত হয়ে আসছে জাতীয় শিশু দিবস। এই উপলক্ষে ৮ম বারের মতো শিশু একাডেমী বইমেলার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী। গত ১৬ মার্চ শিশু একাডেমী প্রাঙ্গণে মেলার উদ্বোধন করেন এমিরেটাস অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান।

আমাদের দেশের লেখক ও কথাসাহিত্যিকদের বইয়ের পাশাপাশি বিদেশি লেখকদের বইও পাওয়া যাচ্ছে এই মেলায়। টলস্টয় থেকে শুরু করে সুকুমার রায়ের শিশুতোষ বই শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন স্টলে। তাছাড়া রয়েছে বিভিন্ন ভ্রমণ কাহিনী, গোয়েন্দা কাহিনী, সায়েন্স ফিকশন, ছড়া, গল্প ও কমিক্সের। এখানকার সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো, শিশুরা তাদের ইচ্ছেমতো মনের আনন্দে বই পড়তে পারে। শিশুরা যাতে তাদের পছন্দসই বই ক্রয় করতে পারে তাই প্রত্যেকটি বইয়ে ২৫% ছাড় দেওয়া হয়েছে।

মোট ৭৫টি প্রকাশনা সংস্থা অংশগ্রহণ করেছে এই মেলায়। শিশুদের জন্য বইমেলাকে আরও আকর্ষণীয় করতে আয়োজন করা হয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। শিশু একাডেমীর সাংস্কৃতিক বিভাগের প্রশিক্ষণার্থী শিশুশিল্পীদের ও ঢাকার বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায়  প্রতিদিন বিকাল ৪টায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হচ্ছে মেলায়।  শিশুশিল্পীরা এতে বিভিন্ন ধরনের নৃত্য, আবৃত্তি, গান, ছড়া পরিবেশন করছে প্রতিদিন। আগামী ২৬ তারিখ পর্যন্ত শিশু-কিশোর ও অভিবাবকদের প্রাঞ্জল উপস্থিতিতে মুখর থাকবে শিশু একাডেমী প্রাঙ্গণ।