সুবীর চৌধুরীর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী

বীর চৌধুরীর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী

বেঙ্গল গ্যালারি অব্ ফাইন আর্টসের পরিচালক ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের অন্যতম ট্রাস্টি সুবীর চৌধুরীর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে তাঁকে আমরা স্মরণ করি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায়।

বেঙ্গল গ্যালারি অব ফাইন্ আর্টসের পরিচালক ও বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের অন্যতম ট্রাস্টি সুবীর চৌধুরী ৩০ জুন ২০১৪ অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরলোকগমন করেন। তিনি মস্তিষ্কের শিরায় ক্যান্সারজনিত জটিলতায় ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যা এবং অগণিত বন্ধু ও সুহৃদ রেখে গেছেন।

সুবীর চৌধুরী ১৯৫৩-২০১৪
প্রায় চার দশকের কর্মজীবনে বাংলাদেশের চারুকলা চর্চা ও এর বিস্তারে নব প্রাণশক্তির উন্মেষ এবং শিল্পীদের জন্য দেশে-বিদেশে নানাবিধ সুযোগ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে সুবীর চৌধুরী ছিলেন নিবেদিতপ্রাণ। শিল্পীদের জন্য তাঁর সহমর্মিতা ও আনুকূল্যে সুস্পষ্ট হয় যখন তিনি ১৯৭৫ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর চারুকলা বিভাগে সহকারী পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। ২০০৪ সালে তিনি বেঙ্গল গ্যালারি অব্ ফাইন আর্টসের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। সেই সময় থেকে ২০১৪ সালে মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত বেঙ্গল গ্যালারির পরিচালক এবং বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের ট্রাস্টি হিসেবে বাংলাদেশের শিল্পীদের শিল্পচর্চায় সহযোগিতার বহুবিধ উপায়-সন্ধানে নিজেকে ব্যাপৃত রেখেছিলেন তিনি। শিল্পীদের বৃত্তি প্রদান, দেশ-বিদেশে চিত্র-প্রদর্শনীর আয়োজন, ক্যাটালগ এবং শিল্পকলা বিষয়ক বিভিন্ন প্রকাশনার উদ্যোগ গ্রহণ করা, দেশি-বিদেশি শিল্পীদের অংশগ্রহণে আর্ট ক্যাম্প আয়োজন, শিল্পীদের জীবন ও কর্ম নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ, শিল্পবিষয়ক সংলাপ আয়োজনসহ বহুবিধ কর্মে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রেখেছিলেন। সর্বোপরি শিল্পী, শিল্পবোদ্ধা, লেখক, সহায়ক প্রতিষ্ঠান ও শিল্পের স্বজনদের সমন্বয়ে একটি শিল্পবলয় গড়ে তুলেছিলেন সুবীর চৌধুরী।

প্রায় চার দশকের কর্মজীবনে বাংলাদেশের চারুকলা চর্চা ও এর বিস্তারে নবীনদের সৃজন এবং চারুশিল্পীদের জন্য দেশে-বিদেশে নানাবিধ সুযোগ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে সুবীর চৌধুরী ছিলেন নিবেদিতপ্রাণ। তাঁর সম্মানে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন তরুণ ও উদীয়মান শিল্পীদের চর্চা ও সাধনায় মাত্রা সঞ্চারের উদ্দেশ্যে বার্ষিক সুবীর চৌধুরী শিল্পচর্চা বৃত্তি (Subir Choudhury Practice Grant ) প্রবর্তন করেছে।