সৃজনশীল বাংলা গানের অ্যালবাম

গানের দেশ বাংলাদেশ। এ দেশের বাংলা গানের বিপুল সম্ভারকে সুশীল শ্রোতাগোষ্ঠীর কাছে পৌঁছে দিতে এ বছরের মাঝামাঝি সময়ে জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ও প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ শিল্পীদের কণ্ঠে ধারণকৃত চিরায়ত সৃজনশীল ধারার তিনটি অডিও অ্যালবাম সিডি আকারে প্রকাশ করেছে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন।
প্রকাশিত সিডির মধ্যে রয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গান নিয়ে ফারহিন খান জয়িতার কণ্ঠে কত মধুসমীরে শিরোনামের অ্যালবাম। যন্ত্রানুষঙ্গ পরিচালনা করেছেন পার্থ পাল।
দিনেন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানের সংকলন নিয়ে সুকান্ত চক্রবর্তী ও অভিজিৎ মজুমদারের কণ্ঠে আমার বেদনা লহ বুঝি শিরোনামের অ্যালবাম। যন্ত্রানুষঙ্গ পরিচালনা করেছেন অম্লান হালদার।
এ ছাড়া বাঙালি সংস্কৃতির প্রাচীন গানের ধারা পদাবলি কীর্তন সংকলন নিয়ে কিরণ চন্দ্র রায়ের কণ্ঠে মেঘ যামিনী শিরোনামের অ্যালবাম। যন্ত্রানুষঙ্গ পরিচালনা করেছেন দূর্বাদল চট্টোপাধ্যায়।

কত মধুসমীরে 
আমি এর আগে জয়িতার গান অনেকবার শুনেছি। কিন্তু এই বিশেষ ঘন বাদনে যে গানগুলো ধারণ করা হয়েছে, সেগুলো শুনতে শুনতে নিজের অজান্তেই আমি এক ভিন্ন সুরের জগতে চলে যাই। রবীন্দ্রনাথের গানের যে বৈচিত্র্য, সে বিষয়টি আমাদের অনেক সাধারণ শিল্পীর কাছে সচরাচর ধরা পড়ে না। জয়িতা তার মুনশিয়ানা দিয়ে সেই বৈচিত্র্য এই সিডিতে নিজেই প্রতিষ্ঠিত করে দিল।                                                                              – নাট্যব্যক্তিত্ব আলী যাকের

 

আমার বেদনা লহ বুঝি  
এতকালের দীর্ঘ অবহেলার পর, দুই বাংলার দুই সাহসী তরুণÑ সুকান্ত আর অভিজিৎ। তাঁরা বিস্মৃত সেই গানগুলো থেকে ন-খানি গান বেছে নিয়ে আমাদের উপহার দিচ্ছেন সযত্ন ভালোবাসায়। এ দুই তরুণের কাছে আমাদের তাই কৃতজ্ঞ থাকা উচিত।                                                                                                                                                                                                                                                                                                           – কবি শঙ্খ ঘোষ

প্রাপ্তিস্থান: অডিও অ্যালবামগুলো শাহবাগ আজিজ সুপার মার্কেটে সুরের মেলা, সুর কল্লোল, প্যাপিরাস, পাঠক সমাবেশ; নিউমার্কেট সংলগ্ন গানের ডালি; এলিফ্যান্ট রোডে গানের ভুবন; পান্থপথে বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সের লেভেল ৬-এর গীতাঞ্জলী; বনানী ও ধানমন্ডিতে অরণ্য ক্রাফট্স বিক্রয়কেন্দ্র; ধানমন্ডি রবীন্দ্রসরোবরের সন্নিকটে ৭/এ সড়কে জ্ঞানতাপস আব্দুর রাজ্জাক বিদ্যাপীঠ; ধানমন্ডির রাপা প্লাজার হলিউড; বেইলি রোডে সাগর পাবলিশার্স; গুলশান ১-এ কুমুদিনী হ্যান্ডিক্রাফট্স; চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সংলগ্ন বাতিঘর ও লালখান বাজারে রাগেশ্রী বিক্রয়কেন্দ্র; সিলেটের জিন্দাবাজারে বইপত্রসহ বিভিন্ন বিক্রয়কেন্দ্রে পাওয়া যাচ্ছে।